সোলাইমানি হত্যাকাণ্ড: মধ্যপ্রাচে বিরুপ প্রভাবের আশংকায় বাংলাদেশ

বৈশ্বিক জ্বালানি তেলের বাজারকে উত্তপ্ত করে তুলেছে ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ডের ‘কুদস ফোর্স’প্রধান মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যাকাণ্ড। এ হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যের অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম আন্তর্জাতিক বাজারে বেড়ে গেছে।

সোলামাইনি হত্যায় পরিস্থিতি আরো অস্থিতিশীল হয়ে ওঠার যে শঙ্কা দেখা দিয়েছে, তাতে বাংলাদেশেও প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অর্থনীতিতে বিরুপ প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতায় তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে পরিস্থিতি আরো সংকটপূর্ণ হলে, তা অঞ্চলটিতে বাংলাদেশের পণ্য রফতানির ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। শ্রমবাজার, রেমিট্যান্সপ্রবাহ আর জ্বালানি তেলের জন্য মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর ওপর বড় ধরনের নির্ভরশীলতা রয়েছে বাংলাদেশের।

পাটসহ আরো বেশ কয়েকটি পণ্যের রফতানি বাজার হিসেবেও বাংলাদেশের জন্য এসব দেশ গুরুত্বপূর্ণ। দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন, সেচ ও পরিবহনসহ আরো বিভিন্ন প্রয়োজনে ব্যবহার করা জ্বালানি তেলের প্রায় পুরোটাই আমদানি করতে হয়। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাবও বহুমাত্রিক।

মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ, বিশেষ করে ইরানে বাংলাদেশের পাট ও পাটজাত পণ্যের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। অ্যান্টি-ডাম্পিং শুল্ক আরোপের কারণে ভারতে পাট রফতানি কমে গেছে।

সোলাইমানির ছবি হাতে ইরানের সাধারণ জনতা

রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতায় রফতানি কমেছে সুদান ও সিরিয়ায়। এমতাবস্থার প্রভাবে গত অর্থবছর পাট ও পাটজাত পণ্যের রফতানি হয়েছে ৮১ কোটি ডলার, যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ২০ ভআগ কম।

এদিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা এক কোটির বেশি প্রবাসী বাংলাদেশির সিংহ ভাগই মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাস করে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের বৈদেশিক মুদ্রার প্রধান উৎস।

পাশাপাশি এটি দেশের অর্থনীতিরও অন্যতম প্রভাবক। ২০১৯ সালে রেমিট্যান্স হিসেবে দেশে আসা ১ হাজার ৮৩৩ কোটি ডলারের বেশির ভআগ এসেছে মধ্যপ্রাচ্য থেকে।

জানা যায়, লন্ডন ও নিউইয়র্কের বাজারে এক ধাক্কায় ৪ শতাংশের বেশি বেড় ব্যারেল প্রতি তেলের মূল্য দাঁড়ায় ৭০ ডলারের কাছাকাছি। এর আগে আন্তর্জাতিক বাজারে সর্বশেষ আলোড়ন তুলেছিল ২০১৯ এর সেপ্টেম্বরে সৌদি আরবের জ্বালানি তেল ফ্যাসিলিটিতে হামলা।

২০১৪ সালের মধ্যভাগ থেকে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম ক্রমাগতভাবে কমতে থাকে। প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম প্রায় দুই বছর ছিল ৩০ থেকে ৫০ ডলারের মধ্যে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ইরানের সামরিক কমান্ডার জেনারেল সোলাইমানির মৃত্যুতে স্বস্তি পাবে ইসরায়েল ও সৌদি আরব। কারণ সোলাইমানিকে প্রতিপক্ষ হিসেবেই বিবেচনা করে দেশ দুটি।

তবে এ হত্যাকাণ্ডের ফলে মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় সব দেশই আক্রান্ত হবে। মূলত ইরানের পরবর্তী পদক্ষেপের ওপরই নির্ভর করছে অঞ্চলটির আগামী দিনগুলোর পরিস্থিতি।

তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে বাংলাদেশের লেনদেন ভারসাম্যের ওপর চাপ আরো বাড়তে পারে। এলএনজি আমদানির ওপরও মধ্যপ্রাচ্যের ওপর বাংলাদেশের নির্ভরশীলতা থাকায় এ পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হলে গ্যাসের দামও বাড়বে।

বর্তমান অবস্থায় রেমিট্যান্সের ওপর খুব বেশি প্রভাব পড়বে না। কারণ তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে ওই অঞ্চলের অর্থনীতি আরো ভালো অবস্থানে থাকবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর নির্দেশে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পেন্টাগন জানিয়েছে।

আমেরিকার বিরুদ্ধে চরম প্রতিশোধ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইরান। যেকোনো সময় হামলার কথা বলা হচ্ছে।

ইরানের মসজিদে মসজিদে যুদ্ধের পতাকা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আমেরিকাও প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

এ হত্যার জন্য প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

জাতিসংঘ মহাসচিব উভয় দেশকে শান্ত থাকার আহবান জানিয়েছেন। যুদ্ধের ভাড় বহন করা জাতিসংঘের পক্ষে সম্ভব নয় বলে জআনান তিনি।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর সাথে কথা বলেছেন। তিনি এই ঘটনার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেন। আমেরিকার নিন্দা জানান দুই নেতা।

এই হত্যাকাণ্ডর জন্য নিন্দা জানিয়েছে চীন। এমন ঘটনা বিশ্বকে অশান্তির দিকে নিয়ে যাবে বলে মনে করে চীন।

এ হত্যাকাণ্ডের জন্য তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জার্মানি। সামরিক হামলার বিপক্ষে জার্মানিরা।

কাতার লেবানন ইয়েমেন ইরাক তুরস্ক ও রাশিয়া ইরানের পক্ষে রয়েছে। গোটা মধ্যপ্রাচ্যে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

আরো দেখুন

Leave a Comment