যা আছে গুজরাটে বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামে

ক্রিকেট ইতিহাসের বৃহত্তম স্টেডিয়াম প্রবেশ করলো গুটরাটের সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়াম। শুধু ক্রিকেটীয় ক্ষেত্রেই নয় ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে এটি বিশ্বের অন্যতম দ্রষ্টব্য স্থান হয়ে উঠেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এদিন এটি উদ্বোধন করেন। বিশাল ইভেন্টে উপস্থিত ছিলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি, সাবেক বোর্ড সভাপতি অনুরাগ ঠাকুর, বোর্ড সচিব জয় শা

গুজরাট ক্রিকেট সংস্থা ২০১৬ সালে মোতেরা স্টেডিয়াম ভেঙে সংস্কার শুরু করে। গতবছর জানুয়ারিতে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। সবরমতী নদীর ধারে ৬৩ একর জায়গা জুড়ে গড়ে উঠেছে এই স্টেডিয়াম।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মস্তিষ্কপ্রসূত এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণ সংস্থা লারসেন অ্যান্ড ট্যুরবোকে (এল অ্যান্ড টি) টেন্ডার দেওয়া হয়।

আর্কিটেকচারাল ডিজাইন ফার্ম পপুলাস স্টেডিয়ামটির সাজসজ্জার দায়িত্ব দেওয়া হয়। পপুলাসের হাতেই অতীতে মেলবোর্নসহ বিশ্বের তাবড় স্টেডিয়ামে প্রাণ প্রতিষ্ঠা হয়েছে

বিশ্বের বৃহত্তম এই ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দর্শক ধারণ ক্ষমতা ১ লাখ ২৫ হাজার। পুরনো স্টেডিয়ামের দর্শক আসন ছিল ৫৭ হাজার। নতুন স্টেডিয়ামে প্রায় দ্বিগুনেরও বেশি দর্শক খেলা দেখতে পারবেন

এতো দিন বিশ্বের বৃহত্তম স্টেডিয়াম ছিল মেলবোর্ন ক্রিকেট স্টেডিয়াম। মেলবোর্নে একসঙ্গে ১ লাখের কিছু বেশি দর্শক খেলা দেখতে পারেন।

মোতেরা স্টেডিয়াম পুনর্নিমাণ করে ৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নামকরণ করা হয়েছে সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়াম।

পুনর্নিমাণের পরে ৫০টি ক্লাবহাউস, অলিম্পিক-ধাঁচের সুইমিং পুল, ৭৩টি কর্পোরেট বক্স, একটি ইনডোর ক্রিকেট অ্যাকাডেমি, তিনটি অনুশীলন মাঠ করা হয়েছে।

স্টেডিয়ামটির বিশেষত্ব হলো অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ফ্লাড লাইট। স্টেডিয়ামের পার্কিং লটের জন্য রয়েছে ৩ হাজার গাড়ি ও ১০ হাজার দুই চাকার যানবাহন রাখার ব্যবস্থা।

একাধিক ইতিহাসের সাক্ষী রয়েছে এ স্টেডিয়াম। ১৯৮৭ সালে এখানেই বিশ্বের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ১০ হাজার রান পূর্ণ করেন সুনীল গাভাসকার।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ও নরেন্দ্র মোদি এটি উদ্বোধন করেন

আর এর সাত বছর পরেই এখানেই দেশের প্রথম বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক কপিল দেব নিজের কেরিয়ারে নিউজিল্যান্ডের স্যার রিচার্ড হ্যাডলির ৪৩১ টেস্ট উইকেটের বিশ্ব রেকর্ড ভেঙে মাইলস্টোন স্পর্শ করেন।

এই মাঠেই নিউজিল্যান্ডের তথা বিশ্বের অন্যতম সেরা ফাস্টবোলার রিচার্ড হ্য়াডলিকে টপকে ৪৩২টি টেস্ট উইকেট নেন হরিয়ানা হ্যারিকেন

এই মাঠেই ১৯৯৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন সচিন টেন্ডুলকার।

এ স্টেডিয়ামে অসংখ্য ক্রিকেটীয় মণিমুক্তা ছড়িয়ে থাকলেও শচীন টেন্ডুলকারের নাম বিশেষভাবে জড়িয়ে রয়েছে এই মাঠের সঙ্গে

২০১১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শচীন ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ান ডে ফরমেটে ১৮ হাজার রান পূর্ণ করেন। এই মাঠেই শচীন ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি করেন।

এই স্টেডিয়ামেই মাস্টার ব্লাস্টার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।

বিশ্বের অনন্য স্টেডিয়াম হিসেবে নতুনভাবে আবির্ভূত হল মোদির রাজ্যের এ স্টেডিয়ামটি।

আরো দেখুন

Leave a Comment