মৌসুমীর অভিনয় জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়

মৌসুমীর অভিনয় জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়

বাংলা সিনেমার তুমুল জনপ্রিয় চিরসবুজ নায়িকা মৌসুমী। ঢাকাই সিনেমার এমন কোন দর্শক নেই যে মৌসুমিকে পছন্দ করে না। সিনেমাপ্রেমীরা প্রায় সকলেই তাঁর ভক্ত বললেও ভুল হবে না।

ঢাকাই সিনেমার উজ্জ্বল নক্ষত্র মৌসুমীর পুরো নাম আরিফা পারভীন জামান মৌসুমী। তার অভিনয় জীবনের ২৭ বছর পূর্ণ চলতি বছরের ২৭ মার্চ।

প্রায় ২০০ সিনেমায় অভিনয়:

১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমায় প্রথম অভিনয় করে এরপর প্রায় ২০০ সিনেমায় অভিনয় করে দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন মৌসুমী।

‘দোলা’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘বিশ্বপ্রেমিক’, ‘গরীবের রাণী’, ‘মোল্লা বাড়ির বউ’, ‘এক কাপ চা’, ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’, ‘আম্মাজান’, ‘মেঘলা আকাশ’, ‘লুটতরাজ’, ‘রাজু মাস্তান’, ‘স্বামী ছিনতাই’, ‘জীবনের গল্প’, ‘বীর সৈনিক’, ‘তাঁরকাটা’, ‘দেবদাস’ ও ‘খায়রুন সুন্দরী’ মৌসুমীর উল্লেখযোগ্য সিনেমা।

বিয়ে করেন ভালোবেসে:

প্রিয়দর্শিনী অভিনেত্রী মৌসুমী ১৯৯৫ সালের ২ আগস্ট ভালোবেসে বিয়ে করেন ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়ক ওমর সানীকে। ওমর সানি মৌসুমী দম্পতির ফারদিন ও  ফাইজাহ এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

৩ নভেম্বর গুণী এই অভিনেত্রীর জন্মদিন। খুলনায় জন্ম নেয়া এই অভিনেত্রী তিন বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন।

দর্শক মাতিয়ে রেখেছেন ২৭ বছর:

প্রায় তিন দশক ধরে তিনি অভিনয় করে দর্শকদের মাতিয়ে রেখেছেন তার অভিনয় জীবনের বিষয়ে কথা বলেছেন গণমাধ্যমের সাথে। সেখান থেকেই তিনি তার গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো জানান যেগুলো তার অভিনয় জীবনে সফলতা এনে দিয়েছে।

“কেয়ামত থেকে কেয়ামত” সিনেমায় রেশমী চরিত্রে অভিনয় করে প্রথম রূপালি পর্দায় অভিষেক হয় মৌসুমির। ঢাকায় সিনেমার চিরসবুজ নায়ক প্রয়াত সালমান শাহ ছিলেন ওই সিনেমার নায়ক। সিনেমাটি পরিচালনা করেন পরিচালনা করেন সোহানুর রহমান সোহান।

ফটো সুন্দরী প্রতিযোগিতা:

‘আনন্দ বিচিত্রা ফটো সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া মৌসুমির জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটা অধ্যায় ছিল। ১৯৯২ সালে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জয়ী হয়েছিলেন মৌসুমী।’ এই প্রসঙ্গে সাপ্তাহিক বিচিত্রার প্রয়াত সম্পাদক শাহাদত চৌধুরীর কথাও স্মরণ করেন মৌসুমী।

‘দিলীপসোম পরিচালিত “দোলা” সিনেমায় অভিনয় মৌসুমীর ক্যারিয়ারে আরেকটি উল্লেখ্যোগ্য ঘটনা। চিত্রনায়ক ওমর সানীর সঙ্গে এই সিনেমায় প্রথম অভিনয় করেন। “দোলা”র পর ” পরিচালকদের পছন্দের তালিকার প্রথমে চলে আসে মৌসুমীর নাম।’

 

গরীবের রাণী দিয়ে প্রচারণা শুরু:

‘অভিনয়ের পাশাপাশি ১৯৯৬ সালে ‘গরীবের রাণী’ সিনেমার মাধ্যমে সিনেমা প্রযোজনায় শুরু হয় তার।  সিনেমা নিয়ে ভাবেন বলেই প্রযোজনায় আসেন। এরপর বেশ কয়েকটি ছবি প্রযোজনা করেন তিনি।

‘২০০৩ সালে ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’ ছবির মাধ্যমে মৌসুমীর সিনেমা পরিচালনা শুরু হয়। এটা ছিল তার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ যাত্রা। এরপর ২০০৫ সালে “মেহের নিগার” নামে সিনেমা পরিচালনা করেছেন তিনি। আরও কয়েকটি সিনেমা পরিচালনার ইচ্ছা রয়েছে মৌসুমীর।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার:

এই পর্যন্ত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনটি সিনেমায় অভিনয় নৈপুণ্য জন্য সিনেমায় যেমন হয়েছে ব্যবসায় সফল কেমন হয়েছে দর্শকদের জনপ্রিয়তা।

মেঘলা আকাশ:

মৌসুমী এ পর্যন্ত তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি মূলত ২০০১ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন ওই বছর তিনি মেঘলা আকাশ সিনেমা অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। পরিচালনা ও প্রযোজনা করেছেন বাংলাদেশী বিখ্যাত নারী চলচিত্রকার নারগিস আক্তার।

এর মূল কাহিনী এইডস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ইস্যু নিয়ে। আরও অভিনয় করেছেন আয়ুব খান, শাকিল খান, পূর্ণিমা, অমিত হাসান, রাজীব, শহিদুল আলম সাচ্চু, ফেরদৌসী মজুমদার, পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায় । একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করেন ভারতের বিখ্যাত অভিনেত্রী শাবানা আজমি।

দেবদাস:

২০১৩ সালে মুক্তিপ্রায় বাংলা চলচ্চিত্র দেবদাস। ১৫ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশি এ সিমেনাটির মুক্তি দেয়া হয়। শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এর বিখ্যাত উপন্যাস দেবদাস অবলম্বনে নির্মাণ করা হয়েছে সিনেমাটি।

বাংলাদেশে নির্মিত দেবদাস গল্পের দ্বিতীয় সংস্করণ ও বাংলাতে প্রথম রঙিন চলচ্চিত্র সংস্করণ। দেবদাসের পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। সিনেমায় নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন শাকিব খান, চন্দ্রমুখী চরিত্রে অভিনয় করেছেন মৌসুমী ও পার্বতী চরিত্রে অভিনয় করেন অপু বিশ্বাস।

১৯৮২ সালে চাষী নজরুল ইসলাম বাংলাদেশে প্রথম দেবদাস নির্মাণ এটি ছিল সাদা-কালো, এর নাম ভূমিকায় ছিলেন প্রয়াত অভিনেতা বুলবুল আহমেদ, চন্দ্রমুখী ও পার্বতী চরিত্রে ছিলেন কবরী এবং আনোয়ারা।

চলচ্চিত্রটি ১৯৮২ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার কয়েকটি বিভাগে মনোনয়নের জন্য জমা দেয়া হয়। কিন্তু জুরিবোর্ড সদস্যরা চলচ্চিত্রিটিকে পুননির্মিত/রিমেক অভিহিত করে কোনো শাখাতেই মনোনয়ন দেয়নি। 

তারকাঁটা:

মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ২০১৪ সালের বাংলাদেশী অ্যাকশন ধর্মী অপরাধমূলক সিনেমা তারকাঁটা। এতে মৌসুমী ছাড়া অভিনয় করেন আরেফিন শুভ, বিদ্যা সিনহা সাহা মীম।

লেখক: হিমালয় আহমেদ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *