বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার দশ শহর

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার দশ শহর

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার দশ শহর নিয়ে এ আয়োজন। এই নিবন্ধটি রিডার ডাইজেস্ট করেছে। চলুন দেখে নেয়া যাক বিশ্বে সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে কোনগুলো স্থান নিয়েছে।

হেলসিঙ্কি:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের নাম হেলসিঙ্কি। ইউরোপের দেশ ফিনল্যান্ডের একটি অত্যন্ত সুগঠনবিশিষ্ট শহর হেলসিঙ্কি। পর্যটকদের বিস্ময়াবিষ্ট সবুজ পাহাড়, পাহাড়ি এলাকায় জাদুঘর ও সমুদ্র সৈকত পয়েন্ট আছে হেলসিঙ্কিতে।

শহরটির জনসংখ্যা ৭৮ লাখ। এই শহর তার বহিরাগত পর্যটক আকর্ষণের জন্য পরিচিত। এটি ফিনল্যান্ডের রাজধানী শহরও। পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার জন্য হেলসিঙ্কির নাগরিকদের গড় আয়ূও বেশি।

নিউ ইয়র্ক:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আমেরিকার নিউ ইয়র্ক শহর। এটি আমেরিকার একটি বিস্ময়কর শহর। শহরটির জনসংখ্যা ১ কোটি ৭ লাখ। এখানে জাদুঘর, পার্ক, রেস্তোরাঁ, হোটেল এবং বড় শপিং সেন্টার জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচিত এই শহর।

নিউ ইয়র্ক আমেরিকার অন্যতম অভিজাত শহর। আমেরিকার যতগুলো শহর আছে তার মধ্যে অন্যতম বৃহত্তম শহর। এটিকে ‘‘বিগ আপেল’’ও বলা হয়ে থাকে। এটি বিশ্বের অন্যতম ব্যস্ততম শহরও।

কোবে:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের তৃতীয় স্থানে রয়েছে কোবে শহর। এটি বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশ জাপানের একটি ধনী শহর। কোবে জাপানের একটি জনবহুল শহর হওয়া সত্বেও বিভিন্ন আকর্ষণীয় দর্শনীয় স্থান আছে রয়েছে।

কোবে পর্যটকদের প্রিয় স্থান। তাই এই শহর উন্নত নিকাশী ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং পরিবেশ বান্ধব যানবাহন খ্যাতি অর্জন করেছে। এখানকার লোকদের গড় বয়সও জাপানের অন্যান্য শহরের তুলনায় বেশি।

ওয়েলিংটন:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের চতুর্থ স্থানে রয়েছে ওয়েলিংটন শহর। এটি নিউজিল্যান্ড এর একটি প্রধান শহর। শহরটির জনসংখ্যা ৫৬ লাখ। ওয়েলিংটনে থিম পার্ক, জঙ্গল পার্ক, জাদুঘর, প্রাকৃতিক পরিবেশে এবং সবুজ রাস্তা আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য একটি আদর্শ শহর।

এই শহরের জনসংখ্যার অত্যন্ত বেশী, কিন্তু তার সৌন্দর্য এবং প্রাকৃতিক আকর্ষণ ক্ষতিগ্রস্ত হয় না। শহর কর্র্তপক্ষ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখে বিধায় এটি বিশ্বের অন্যতম আকর্ষণীয় শহরের সারিতে অবস্থান করছে। প্রতি বছর প্রচুর পরিমাণে দর্শনার্থী আসে এ শহরে।

সিঙ্গাপুর:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের পঞ্চম স্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর। বলে রাখা ভালো সিঙ্গাপুর বিশ্বের অন্যতম নগররাষ্ট্র। এটি এশিয়া মহাদেশের অন্যতম ধনী দেশও। পরিস্কার ও পরিচ্ছন্নাতর দিক দিয়েও এশিয়ান অন্যতম সেরা, ব্যস্ততম নগরী।

এখানকার মানুষজন ব্যস্ত জীবন যাপন সত্বেও সন্ধ্যার সময় বা সপ্তাহান্তে তাদের হৃদয় ও মন আনন্দে ভরে থাকে। সিঙ্গাপুরের সরকারী ভাষা ইংরেজি। মোট ৫৪ লাখ জনসংখ্যা রয়েছে সিঙ্গাপুরে। এই শহর বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশ্বের উপর প্রভুত্ব বিস্তার করে।

লন্ডন:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে লন্ডন। এটি যুক্তরাজ্যেল একটি সুন্দর এবং উন্নত শহরও। তবে এই শহর তার পরিষ্কার সড়ক ও সতেজ বায়ুমণ্ডলের জন্য সমানভাবে বিখ্যাত। লন্ডনের আবহাওয়া সাধারণত অত্যন্ত আনন্দদায়ক।

লন্ডনকে পৃথিবীর রাজধানীও বলা হয়ে থাকে। বিশ্বের নানান দেশের নানান জাতের মানুষ বসবাস করে লন্ডনে। এই শহরের খ্যাতি বিশ্বজোড়া।

ফ্রেইবুর্গ:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের সপ্তম স্থানে রয়েছে ফ্রেইবুর্গ শহর। এটি ইউরোপের দেশ জার্মানির অন্যতম শহর। জার্মানির যে কোনো শহরের তুলনায় ফ্রেইবুর্গ এর সবুজ পাহাড় ও পুষ্পময় পরিবেশ উপভোগ্য।

এই শহর তার তাজা ঘাস বাগান, পার্ক, সুন্দর রাস্তা গাছ ও ইকো বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশের জন্য বিখ্যাত। ফ্রেইবুর্গ পর্যটকদের উপভোগ করার জন্য প্রধান কেন্দ্র।

প্যারিস:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের অষ্টম স্থানে রয়েছে প্যারিস নগরী। এটি ইউরোপের ঐতিহ্যবাহী দেশ ফ্রান্সের রাজধানী শহর। কেনাকাটা ও ফ্যাশন প্রেমীদের জন্য প্যারিসের জুড়ি মেলা ভার।

ফ্রান্সের রাজধানী শহর সত্বেও প্যারিসের পরিষ্কার সড়ক, সুগঠিত ট্রাফিক সিস্টেম ও সুন্দর থিম পার্ক এর জন্য বিশ্বজুড়ে প্রশংসিত শহরের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে। ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য এই শহর খুবই উপভোগ্য। প্যারিসকে প্রেমের নগরীও বলা হয়ে থাকে।

ব্রিসবেন:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের নবম স্থানে রয়েছে ব্রিসবেন শহর। ব্রেসবেন অস্ট্রেলিয়ার একটি মনোরম শহর। ব্রিসবেনের ২৪ লাখ জনসংখ্যা। চমৎকারিত্ব, পরিষ্কার ও আর্দ্র আবহাওয়ার পরিবেশের জন্য বিখ্যাত ব্রিসবেন।

ব্রিসবেনে পর্যটকদের জন্য রয়েছে অসাধারণ আবাসিক সুবিধা। এছাড়াও সংগঠিত ও নিরাপদ শহর হিসেবে ব্রিসবেনে খ্যাতি বিশ্বজোড়া।

অসলো:

বিশ্বের সবচেয়ে পরিষ্কার শহরের দশম স্থানে রয়েছে অসলো। এটি ইউরোপের দেশ নরওয়ের ব্যস্ততম ও সবচেয়ে জনবহুল শহরগুলোর অন্যতম একটি শহর।

অসলোর সুন্দর সবুজ এলাকায়,পার্ক, হ্রদ এবং বাগানে জন্য অসাধারণ।

অসলো বিশ্বের দ্বিত্বীয় সবুজ শহর হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছে। প্রতি বছর এখানে পর্যটকরা আসে। অসলো নরওয়ের রাজধানী শহর। এটিকে শান্তির শহর বলা হয়। কারণ এই শহর থেকেই নোবেল কমিটি শান্তি পুরষ্কার দেয়।

লেখক: ইসরাত জাহান পুষ্পিতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *