বাংলাদেশের গ্রামের বাসিন্দা যখন আমেরিকান ডাক্তার

বাংলাদেশের গ্রামের বাসিন্দা যখন আমেরিকান ডাক্তার

ডা. এড্রিক বেকার যাকে সকলে ডাক্তার ভাই’ নামে চেনে। অজপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র মানুষজনকে চিকিৎসা সেবা দিতে সুদূর নিউজিল্যান্ড থেকে বাংলাদেশে উড়ে এসেছিলেন তিনি। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সেবাই ব্রত ছিলেন জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ৩২টি বছর।

১৯৯৬ সালে টাঙ্গাইলের মধুপুরের নিভৃতপল্লী কৈলাকুরিতে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র ‘কৈলাকুরি হেলথ কেয়ার প্রজেক্ট’ চালু করেছিলেন এড্রিক বেকার। আমৃত্যু সেই গ্রামের লোকদের চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ছিলেন।

২০১৫ সালের ৩ সেপ্টেম্বর এই স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রের কাদামাটি-টিন দিয়ে গড়া রুমে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।মৃত্যুকালে এড্রিক বেকারের বয়স ছিল ৭৫ বছর।

তার মৃত্যুর পর, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের একজন মেডিক্যাল অফিসার, দুজন শিক্ষানবিশ চিকিৎসক ও কয়েকজন প্যারামেডিক স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে রোগিদের জন্য চিকিৎসা সেবা দেওয়া চালু রাখেন।

২০১৯ সালের জুলাইয়ে আমেরিকার এক চিকিত্সক দম্পতি বেকারের প্রতিষ্ঠিত টাঙ্গাইলের কৈলাকুরি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রের দায়িত্ব নিতে এগিয়ে আসেন।

তারা হলেন- ডা. জেসন (৪৫) ও তার স্ত্রী ডা. মেরিন্ডি (৪৪)।

বর্তমানে এই দম্পতি তাদের চার সন্তান নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রের মাটির ঘরে বসবাস করছেন।বাংলাদেশের পোশাক লুঙ্গি-ফতুয়া পরে ডা. জেসন আর সালোয়ার কামিজ পরে ডা. মেরিন্ডি চিকিৎসা সেবা করছেন গ্রাম্যবাসীকে।

সন্তানদের স্থানীয় একটি মিশনারি স্কুলে অন্যান্য বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে ভতি করিয়ে দিয়েছেন। বাচ্চারাও গ্রামের পরিবেশের সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিয়েছে বেশ ভালোভাবে।

জেসন দম্পত্তি লেখাপড়া করেছেন ইউনিভার্সিটি অব ওকলাহোমায়। ক্যালিফোর্নিয়ার নেটিভিডেড মেডিকেল সেন্টারে এক সাথে কাজ করার সময় পরিচয় হয় আর ২০০৫ সালে পরিচয় থেকে পরিণয় হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *