পাকিস্তানের চেয়েও এখন ৪৫% বেশি ধনী বাংলাদেশ !

পাকিস্তানের চেয়েও এখন ৪৫% বেশি ধনী বাংলাদেশ !

জেসিকা জাহিন: ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময়ে  পাকিস্তান বাংলাদেশের চেয়ে ৭০ শতাংশ বেশি ধনী ছিল। বর্তমানে বাংলাদেশ পাকিস্তানের চেয়ে ৪৫ শতাংশ বেশি ধনী দেশে পরিণত হয়েছে।

সে সময়ে অর্থনীতির প্রতিটি সূচকে পাকিস্তান এগিয়েছিল। ৫ দশক পর অর্থাৎ ৫০ বছর পর প্রায় প্রতিটি সূচকেই  বাংলাদেশ থেকে পিছিয়ে আছে পাকিস্তান।

প্রেক্ষাপটের এমন পটপরিবর্তনে, পাকিস্তানের এক অর্থনীতিবিদ বিশ্বব্যাংকের পাকিস্তান প্রোগ্রামার আবিদ হাসান দেশটির প্রথম সারির ইংরেজি দৈনিক তা নিউজ ইন্টার্নেশনালে সম্প্রতি জানিয়েছেন, হয়তো ২০৩০ সালে বাংলাদেশের কাছে সহায়তা চাইতে হতে পারে পাকিস্তানকে।

ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্ট ইউনিটসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক এই উন্নয়নকে চিহ্নিত করেছে ‘বিস্ময়কর ধাঁধা’ হিসেবে।

একটি তুলনামূলক পরিসংখ্যান দিলে বিষয়টি স্পষ্ট হবে।

১৯৭২ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ছিল ১২০ মার্কিন ডলার আর পাকিস্তানের ছিল ১৮০ ডলার। বর্তমানে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ২ হাজার ২২৭ ডলার, পাকিস্তানের ১ হাজার ৫৪৩ ডলার।

১৯৭২-৭৩ অর্থবছরে বাংলাদেশের রপ্তানির পরিমাণ ছিল মাত্র ৩৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার এবং পাকিস্তানের রপ্তানি ছিল ৭৬ কোটি ডলার।

অর্থাৎ ৪৮ বছর আগে আমাদের রপ্তানি ছিল পাকিস্তানের অর্ধেকের কম। আর এখন আমাদের রপ্তানি পাকিস্তানের দুই গুণের বেশি।

এদিকে, বাংলাদেশের মুদ্রার মানও পাকিস্তানের চেয়ে অনেক বেশি, ১৯৭২ সালে যা বেশ কম ছিল। বর্তমানে ১ মার্কিন ডলারের সমান বাংলাদেশের ৮৪ টাকা আর পাকিস্তানের ১৪১ রুপি।

২০২০-এ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল চোখে পড়ার মতো।

বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৭ দশমিক আট শতাংশ। যেখানে ৫ দশমিক ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক নিচে রয়েছে পাকিস্তান।

বর্তমানে বাংলাদেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ৩২ বিলিয়ন ডলার। পাকিস্তানের তা চার ভাগের এক ভাগ অর্থাৎ মাত্র ৮ বিলিয়ন ডলার।

আর এভাবেই সবগুলো ধাপে পাকিস্তানের তুলনায় এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের বিএফ অর্থনীতির অগ্রগতি যদি বজায় থাকে তবে এক দশকের মধ্যে বাংলাদেশের কাছে হাত পাতে পাকিস্তান এমনটাই মনে করছেন খোদ পাকিস্তানের অর্থনীতিবিদরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *