নিরাপত্তায় তার জালির ব্যবহার

মারিয়াম জাহান: ঘরে ভয় চোরের, ফসলে ভয় হাঁস, মুরগী, পশু-পাখির। আমাদের দেশে বাড়ির নিরাপত্তা কিংবা ফসলাদির নিরাপত্তার স্বার্থে নানা রকম বেড়া কিংবা ইটের দেয়াল ব্যবহার করা হয়।

ফসলের নিরাপত্তায় কারেন্ট জাল ব্যবহার হলেও বাড়ির নিরাপত্তায় সাধারণত ব্যবহার হয়ে থাকে ইটের দেয়াল কিংবা বাঁশের ও টিনের বেড়া। তবে দীর্ঘস্থায়ী ও তুলনামূলক দাম কম হওয়ায় হালে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে তারজালির ব্যবহার।

নিরাপত্তার স্বার্থে বা নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখতে তারজালি খুবই জনপ্রিয়। স্বল্প মূল্য হওয়ায় বাঁশের বদলে তারজালি ব্যবহার করে। জং ধরে না। স্থায়ীত্বও প্রায় ২০ বছর। তবে ২০ বছরের পর রং জ্বলে কালো হয়ে যায়। টিন ঝড়ে উপড়ে ফেলতে পারে। আর বাঁশ ৩-৬ মাসের বা সর্বোচ্চ ১ বছরের মধ্যে ভেঙ্গে যায়।

টেকসই তার জালির রোল

সে ক্ষেত্রে তারজালি উত্তম। টেকসই। একবার বাউন্ডারি দিলে নিরাপত্তার চাদরে ১৫-২০ বছরে আর সেখানে হাত দিতে হবে না। মূলত তার দিয়ে যে বেড়া বানানো হয় তাকে তারের বেড়া বা তারজালি বলা হয়। স্বল্প টাকায় জমিকে সুরক্ষার জন্য তারজালির জুড়িমেলা ভার। এবারের আয়োজন বিভিন্ন রকম তারজালি নিয়ে।

রকমফের:

চেইন নেট, ওয়্যার নেট, কাটা তার, পিভিসি ও জিআই এ পাঁচ ধরনের তার দিয়ে তারজালি তৈরি করা হয়। এর মধ্যে পিভিসির তারজালি লাল, আকাশী, গোলাপি, হলুদ, সবুজ হয়। এয়াড়া কিছু কিছু জিআই তারও প্লাস্টিকে মোড়ানো থাকে।

নানান রকমের তার জালি

লাল প্লাস্টিকে মোড়ানো তারজালি কেবল কোয়েল পাখির জন্য ব্যবহার করা হয়। সব ধরনের তারজালি ফুট অনুযায়ী বিকিনিকি হয়। আর কাঁটা তার ও বালু চালনি ও খোয়া চালুনির তারজালি কেজি দামে বিক্রি হয়।

বৈশিষ্ট্য:

-সহজে জং ধরে না
-টিন ও বাশেঁর বিকল্প
-অনায়াসে ২০ বছর ব্যবহার করা যায়
-সহজে ব্যবহার উপযোগী
-ক্ষার দ্বারা প্রভাবিত নয় ও টেকসই
-রাসায়নিক এজেন্ট প্রতিরোধী
-সহজে পরিবহন করা যায়
-কংক্রিট, ইট, কাঠ বা প্লেট সিলিংসহ অনেক ধরণের পৃষ্ঠায় ব্যবহার করা যায়

দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ:

তারজালির দৈর্ঘ্যরে কোনো সীমা নেই। তবে প্রস্থ দেড় ফুট থেকে ১০ ফুট পর্যন্ত হয়। কাজের প্রয়োজন অনুসারে বিভিন্ন প্রস্থের তারজালি বানিয়ে নেওয়া যায়।

জিআই তারের মাধ্যমে তৈরি করা হচ্ছে তার জালি

বাসা বাড়িতে মশা মাছি থেকে সুরক্ষার জন্য আড়াই ফুট প্রস্থের যেমন তারজালি রয়েছে তেমনি রয়েছে বাণিজ্যিকভাবে অর্থকরি ফসলকে সুরক্ষাকারী ১০ ফুট প্রস্থের তারজালিও পাওয়া যায়।

নেট গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ: 

তারজালির নেট গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ সাধারণ প্রয়োজন অনুসারে করা হয়। বাসা বাড়িতে নেটের জালির গ্যাপ সাধারণত ১ মিলি মিটার থেকে ৪ মিলি মিটার পর্যন্ত হয়। আর বাণিজ্যিকভাবে খামারে নেট গ্যাপ হয় আধা ইঞ্চি থেকে শুরু করে ৪ ইঞ্চি পর্যন্ত।

দরদাম:

তারজালির দাম নির্ভর করে গ্যাপের ওপর। গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ ছোট হলে দাম বেশি। আর গ্যাপ বড় হলে দাম কম। সুরক্ষা বা নিরপত্তায় সাধারণ আধা ইঞ্চি, এক ইঞ্চি, দেড় ইঞ্চি, দুই ইঞ্চি, আড়াই ইঞ্চি, তিন ইঞ্চি, সাড়ে তিন ইঞ্চি, চার বা সাড়ে চার ইঞ্চি পর্যন্ত গ্যাপ দেওয়া হয় বিভিন্ন তারজালিতে।

তার জালির বহুবিদ ব্যবহার

গ্যাপ ছাড়াও তারের নাম্বারের উপর তারজালির দাম নির্ভর করে। ১০ নাম্বার থেকে শুরু করে ২২ নাম্বার পর্যন্ত তারে তারজালি বানানো হয়। নিচে বিভিন্ন রকমের তারের নাম্বার, ফাঁকার পরিমাণ ও দাম দেওয়া হলো-

১০ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-
ক্রমিক-তারের নাম্বার—গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ——দাম (প্রতি বর্গফুট)
১——-১০ —————–৩ ইঞ্চি ——————-১০-১২ টাকা
২——-১০—————–২ ইঞ্চি ——————–১২-১৪ টাকা
৩——-১০—————–১ ইঞ্চি———————১৫-১৭ টাকা
৪——-১০ —————১/২ ইঞ্চি——————–১৭-২০ টাকা

 

১২ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-

ক্রমিক—–তারের নাম্বার——গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ——–দাম ( প্রতি বর্গফুট)
১———-১২————— —–৩ ইঞ্চি——————– ১০-১২ টাকা
২———-১২——————–২ ইঞ্চি ——————–৬-১৮ টাকা
৩———-১২——————-১ ইঞ্চি———————১৮-২০ টাকা
৪———-১২————- —–১/২ ইঞ্চি ——————–২০-২২ টাকা

নিরাপত্তায় সিমেন্ট দেওয়ালের উপরে তার জালির ব্যবহার

১৪ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-

ক্রমিক ——-তারের নাম্বার ——গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ —–দাম ( প্রতি বর্গফুট)
১————১৪—————– —৩ ইঞ্চি ———————-১০-১২ টাকা
২————১৪——————–২ ইঞ্চি———————–১২-১৫ টাকা
৩ ———–১৪ ——————-১ ইঞ্চি———————–১৫-১৭ টাকা
৪ ————১৪ ——————১/২ ইঞ্চি ———————১৮-২০ টাকা

 

১৬ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-
ক্রমিক———–তারের নাম্বার———গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ——–দাম ( প্রতি বর্গফুট)
১————–১৬——————–৩ ইঞ্চি ———————–৮-১০ টাকা
২————–১৬ ——————-২ ইঞ্চি———————–১০-১২ টাকা
৩————–১৬ ——————-১ ইঞ্চি ———————–১২-১৪ টাকা
৪—————১৬ ——————-১/২ ইঞ্চি——————–১৪-১৬ টাকা

বাসাবাড়িতে মশামাছি ও পোকামাকড় থেকে সুরক্ষার জন্য পাথর ও ইটের ভাঙা খোয়ার চালনিতে ১৮, ২০ ও ২২ নাম্বার তারের জালি ব্যবহার করা হয়। আড়াই থেকে সাড়ে তিন ফুট প্রস্থের মশা-মাছি প্রতিরোধী তারজালির ব্যবহার সবচেয়ে বেশি।

গরু-ছাগল থেকে গাছকে সুরক্ষায় নিরাপত্তা তার জালি

নেট গ্যাপ ১.৫ ও ২ মিলি মিটার ২২ নাম্বার তারের জালি ১২০-১৩০ টাকা কেজি ধরে। ৩/৪ ইঞ্চি গ্যাপের খোয়া চালনি (পাথর/ইট ভাঙা) ১৮ নাম্বার তারের আড়াই, তিন ও সাড়ে তিন ফুটের তারজালি ৫০-৫৫ টাকা।

১/২ ইঞ্চি গ্যাপের ১৮ নাম্বার তারের খোয়া চালনি ৫৫-৬০ টাকা দামে বিক্রি হয়। নিচে ছকের মাধ্যমে ১৮, ২০ ও ২২ নাম্বার তারের জালির বর্ণনা দেওয়া হলো-

১৮ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-
ক্রমিক–তারের নাম্বার–গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ—দাম ( প্রতি ফুট)
১——-১৮ ———১.৫ মিলি মিটার ————–৫৫-৬০ টাকা
২——-১৮———২ মিলি মিটার—————–৫৫-৬০ টাকা
৩——-১৮———৩/৪ ইঞ্চি ———————৫০-৫৫ টাকা
৪——-১৮———১/২ ইঞ্চি ———————-৫০-৫৫ টাকা

 

২০ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-
ক্রমিক—তারের নাম্বার— গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ—দাম ( প্রতি ফুট )
১ ———-২০ ———-২ মিলি মিটার ————৫০-৫৫ টাকা
২ ———-২০ ———-৩ মিলি মিটার ————৪৫-৫০ টাকা
৩ ———-২০ ———-৩/৪ ইঞ্চি —————–৪০-৪৫ টাকা
৪ ———-২০———- ১/২ ইঞ্চি ——————৪০-৪৫ টাকা

২২ নাম্বার তারের ফাঁকার পরিমাণ ও প্রতি বর্গফুটের দাম নিচের ছকে দেওয়া হলো-
ক্রমিক–তারের নাম্বার–গ্যাপ বা ফাঁকার পরিমাণ—দাম ( প্রতি কেজি)
১—–২২ ———-১.৫ মিলি মিটার———- ১২০-১৩০ টাকা
২ —–২২———- ২ মিলি মিটার ———-১১০-১১৫ টাকা
৩ —–২২ ———-২.৫ মিলি মিটার ——–১০০-১০৫ টাকা
৪—– ২২ ———-৩ মিলি মিটার ———-৯০-১০০ টাকা

কি কাজে লাগে:

-হাঁস মুরগির বাণিজ্যিক খামারে
-টারকির বাণিজ্যিক খামারে
-কবুতর ও পাখির খামারে
-ছাগলের বাণিজ্যিক খামারে (চারণভূমি ফেন্সিং)
-যে কোনো ধরনের পাখির খামারে
-ভেড়া/ গারলের বাণিজ্যিক খামারে
-ডেইরি খামারে
-উটপাখির খামারে
-কুমিরের বাণিজ্যিক খামারে
-বাগান বাড়ির নিরাপত্তা বেষ্টনিতে
-মৎস প্রকল্প/ পুকুরের চার পাশের নিরাপত্তার কাজে
-নিজ বাড়ির নিরাপত্তায় সিকিউরিটি ফেন্সিংয়ে
– বাড়ির আশপাশের ঝোপঝাড় নেট দিয়ে আটকে দিতে
– ছোট ছোট বাচ্চাকে বেজি, গুইসাপ ও কুকুর থেকে সুরক্ষায়
– বাসা বাড়িকে মশা-মাছি ও বিভিন্ন রকম পোকামাকড় থেকে সুরক্ষায়
-সেনানিবাস ও বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সীমানায়
– চারাগাছ সুরক্ষায়

তারজালির কাঁচামাল:

চেইন নেট, ওয়্যার নেট, কাটা তার, পিভিসি ও জিআই তার হলো তারজালির কাঁচামাল। নিরাপত্তার সুবিধার্থে হাঁস, মুরগি, টারকির বাণিজ্যিক খামারে এসব তার ব্যবহার করা হয়। ১০, ১২ ১৪, ১৬ নাম্বার তারের জালির প্রয়োজন।

প্লাস্টিকের তৈরি তার জালি

১০ নাম্বার ও ১২ নাম্বার তারের মূল্য প্রায় একই তবে ১৪ নাম্বার তারের দাম এই দুই ধরনের তারের চেয়ে বেশি। ১৪ নাম্বার তারের কয়েলের দাম ৪৬০০-৪৮০০ টাকা। এক কয়েল তারের ওজন ৫০ কেজি।

প্রতি কেজি তারের দাম ৯০-৯৫ টাকা। ১০/১২ নাম্বারের তার কয়েলের দাম ৩৯৫০-৩১০০ টাকা। প্রতি কেজির দাম ৭৮-৮৫ টাকা। প্রতি একশ ফুট বুনন মজুুরি ৮০ টাকা (১০/১২ নাম্বার) প্রতি ঘন্টায়। আর প্রতি একশ ফুট বুনন মজুুরি ১০০ টাকা (১৪ নাম্বার) প্রতি ঘন্টায়

তারজালি তৈরি ও সরঞ্জামাদী:

তারজালির মেশিনে বিভিন্ন মাপের ডাইস ও কাটার থাকে। যা তার কাটায় ব্যবহৃত হয়। তারগুলো পরে বুনন করতে হয়। ম্যানুয়াল মেশিন ও সেমি অটো মেশিন এ দুইভাবে তার বুনন করা যায়। বাসা বাড়িতে যে বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয় সেই বিদ্যুৎ দিয়েই তারজালির মেশিন চালানো যায়।

ম্যানুয়াল মেশিন ৩-৪ জন লোকই চালাতে পারে। এর দাম ২৫ হাজার টাকা থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত হয়। ম্যানুয়াল মেশিনে উৎপাদন কম হলেও তার নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। আর তার যদি নষ্টও হয় তবে তা সোজা করা যায়।

হাতে তার জালি বুনছেন শ্রমিকরা

অন্যদিকে অটো মেশিনে দিনে গড়ে ১০-১২ কেজি তার বাঁকা হয়ে নষ্ট হয়। ছোট সেমি অটোমেশিনের দাম ৯৫ হাজার টাকা থেকে দেড় লাখ টাকা। আর বড় অটো মেশিনের দাম ৭ লাখ টাকা থেকে শুরু করে ১৪ লাখ। সেমি অটো মেশিনে গ্যাপের মাপ দিয়ে দিলে অটোমেটিক বা স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার বের হয়।

আবার অন্য মেশিনে বুনন করা যায়। আবার হাতেও বুনন করা যায়। অটো মেশিন চালানোর জন্য জায়গাও বেশি লাগে। এ মেশিন একজনই চালাতে পারে। ম্যানুয়াল মেশিনের চেয়ে অটো মেশিনের প্রোডাকশন ক্যাপাসিটি বা উৎপাদন সক্ষমতা বহুগুল বেশি।

প্রাপ্তিস্থান:

সারাদেশের যে কোনো হার্ডওয়ারের দোকানে তারজালির কাঁচামাল ও প্রস্তুতকৃত তারজালি পাওয়া যায়। ঢাকার নবাবগঞ্জ, শ্যামপুর, নাজিমুদ্দিন রোড, কেরানীগঞ্জে তারজালি ও এর তৈরির ম্যানুয়াল ও সেমি অটো মেশিন পাওয়া যাওয়া।

আরো দেখুন

Leave a Comment