কুয়েতে আজানের ভাষায় পরিবর্তন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করতে মসজিদে আজানের ভাষায় পরিবর্তন এনেছে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম মুসলিম সংখ্যা ঘরিষ্ঠ ও ধনী দেশ কুয়েত। আজানের সময়, ‘নামাজের জন্য এসো’এর পরিবর্তন করে ‘ঘরে বসে নামাজ আদায়ের’ কথা বলা হচ্ছে।

দুবাই ভিত্তিক গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কুয়েতে এরই মধ্যে শতাধিক ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে দেশটির আওকাফ অ্যান্ড ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স মন্ত্রণালয় শুক্রবারের জুমার নামাজসহ সব ধরনের জামাতে নামাজ আদায় স্থগিত করেছে।

আজানের ভাষায় যে পরিবর্তন:

দেশটির মুয়াজ্জিনরা আজানে কিছুটা পরিবর্তন এনেছেন। ‘হাইয়া আলাস সালাহ’ (নামাজের জন্য এসো) এর পরিবর্তে ‘আস সালাতু ফি বুয়ুতিকুম’ (ঘরে নামাজ আদায় কর) উচ্চারণ করছেন।

জামাতে নামাজ আদায়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মুয়াজ্জিনরা মসজিদের মাইকে আজান বন্ধ করবেন না জানিয়ে আজানের ভাষায় এ পরিবর্তন এনেছেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় কুয়েতে দুই সপ্তাহ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। গত ১৩ মার্চ থেকে এ ছুটি কার্যকর চলছে।

করোনার প্রকোপ থেকে বাঁচতে মসজিদে নামাজও সীমাবদ্ধ করা হয়েছে দেশটিতে। কুয়েতের ধর্ম মন্ত্রণালয় মসজিদে শুধু আজান হবে আর নামাজ বাসায় পড়ার ঘোষণা দিয়েছে।

কুয়েতের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এমন ঘোষণার পর ব্যতিক্রমী এক চিত্র দেখা গেছে দেশটির বিভিন্ন মসজিদে। সেখানে আজানের মাধ্যমে মুয়াজ্জিন বলছেন, ঘরে বসে নামাজ পড়তে। আজানের সব চেয়ে অপরিচিত এই বাক্য শোনা যায় কুয়েতের বিভিন্ন মসজিদে।

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল আজানের ভিডিও:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আজানের এ ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, তাতে দেখা যায়, নামাজের আজানে ‘হাইয়া আলাস সালাহ’ (নামাজে আসো) যে লাইনটি রয়েছে, সেখানে মুয়াজ্জিন বলছেন, ‘আল-সালাতু ফি বুয়ুতিকুম।’এর মানে আপনারা বাড়িতে বসে নামাজ পড়ুন। এরপর যথারীতি ‘আল্লাহ আকবর’ এবং ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’ বলে আজান শেষ করা হয়।

এদিকে সৌদি ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল আরাবিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নামাজ পড়তে না আসতে কুয়েতের মসজিদগুলো থেকে বিভিন্নভাবে ঘোষণা দেয়া হচ্ছে। কোনো মসজিদে আজানের শুরু বা শেষে বিষয়টি বলে দেয়া হচ্ছে। আবার অনেক মসজিদে ‘হাইয়া আলাস সালাহ’র পরিবর্তে ‘আল-সালাতু ফি বুয়ুতিকুম’ কথাটি বলা হচ্ছে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, এরই মধ্যে কুয়েতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তবে সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যুর কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

আজান ছাড়াও অন্য সিদ্ধান্ত:

আজান ছাড়াও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আরও কয়েকটি সিদ্ধান্তের কথাও ঘোষণা করেছে কুয়েত সরকার। দেশটির মন্ত্রিপরিষদের নেয়া অন্য সিদ্ধান্তগুলো হলো, পাবলিক ও প্রাইভেট সেক্টরে ১২-২৬ মার্চ পর্যন্ত ছুটি থাকবে।

পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত কুয়েতের সব বাণিজ্যিক ফ্লাইট স্থগিত থাকবে। সংক্রমণ এড়াতে সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রেস্তোরাঁ, ক্যাফে, হল, শপিং সেন্টার, প্রাইভেট হেলথ ইনস্টিটিউট বন্ধ থাকবে। ব্যাংকগুলো ১২-২৯ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে তবে এটিএম বুথ উন্মুক্ত রাখার ঘোষণা দিয়েছে।

ইরাক, ইরানে নিষিদ্ধ সতর্ক সৌদি আরব:

তুরস্ক ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আনাদুলু এজেন্সির এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, কুয়েত ছাড়াও মহামারি করোনার বিস্তার ঠেকাতে ইরাক ও ইরানও জামাতে নামাজ আদায় নিষিদ্ধ করেছে। সৌদি আরবে জামাতে নামাজ পড়া চললেও অনেক সতর্কমূলক ব্যবস্থা মেনে চলতে হচ্ছে।

আল আকসা মসজিদ বন্ধ ঘোষণা:

আজান পরিবর্তন

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে মুসলমানদের প্রথম কিবলাহ ও তৃতীয় পবিত্র স্থান আল-আকসা মসজিদ সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। জেরুজালেমের ওয়াকফ কমিটি ১৫ মার্চ এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে কমিটি।

করোনা প্রতিরোধে সাবধানতার অংশ হিসেবে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ডেইলি সাবাহ নিউজ এ তথ্য জানায়। তবে মসজিদের বাইরের অংশ ইবাদতের জন্য খোলা থাকবে।

মসজিদের পরিচালনা পরিষদ জানায়, করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা হিসেবে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত আল আকসা মসজিদের ভেতরে নামাজের স্থানগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে মসজিদের প্রাঙ্গণে নামাজ আদায় করা যাবে।

ঘরে বসে প্রার্থনার আহ্বান ফিলিস্তিনের: 

ফিলিস্তিনের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নাগরিকদের ঘরে বসে প্রার্থনার আহ্বান জানিয়েছে। এক বিবৃতিতে ধর্ম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জনগণের মধ্যে যোগাযোগ কমানো এবং যতটা সম্ভব জনসমাগম কমিয়ে আনার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সুপারিশের আলোকে আমরা ফিলিস্তিনের জনগণকে ঘরে বসে প্রার্থনা করার আহ্বান জানাচ্ছি।

আরো দেখুন

One Thought to “কুয়েতে আজানের ভাষায় পরিবর্তন”

  1. আমায় ক্ষমা করো

    হে আল্লাহ! রাব্বুল আলামিন, তুমি আমাদের রক্ষা করো। সকল বিপদ-আপদে তুমিই কেবল আমাদের ভরসা।

Leave a Comment