করোনায় ব্যাট নিলাম এ তুললেন বাটলার, সাকিব, মুশফিক, আশরাফুল ও রাহুল

করোনার পরিস্থিতিতে ব্যাট নিলামে তুলেছেন বিশ্বের বেশ কয়েকজন নামকরা ক্রিকেটার। তারা নিজেদের করা ব্যাটিং পারফরমন্সকে দুস্তদের জন্য খরচ করার ঘোষণা দিয়েছেন। তাদের এমন মহতী উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন ক্রিয়ামোদিরা।

শুরু করেন জস বাটলার:

বিশ্বকাপ জয়ী ইংল্যান্ড দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জস বাটলার তার বিশ্বকাপের জার্সি নিলামে তোলেন। তা থেকে পাওয়া অর্থ দিয়ে তিনি করোনা লড়াইয়ে সামিল হন। জস বাটলার জার্সি বিক্রি করে ৬৫ হাজার পাউন্ড তুলেছেন। তার পুরোটাই তিনি করোনায় সহায়তায় ব্যয় করেছেন।

হয়তো জস বাটলার প্রথমে করোনায় নিজের ব্যাট নিলাম না তোলার ঘোষণা না দিলে তার পরে অন্য ব্যাটস ম্যানরা নিজের ব্যাট নিলামে নাও তোলার ঘোষণা দিতে পারতেন। তাই ক্রিকেট বিশ্ব তাকেই বেশি সাধুবাদ দিচ্ছে। তার এমন মহতী উদ্যোগই জুনিয়র খেলোয়াড়দের মানবতা বোধ জাগ্রত করবে বলে মনে করেন ক্রিয়ামোদিরা।

বিশ্বকাপ জয়ী ইংল্যান্ড দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জস বাটলার

বাটলারের পথে হাটেন সাকিব আল হাসান:

২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ মাতিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। দুর্দান্ত বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও তার পারফরম্যান্স ছিল অসাধারণ। প্রিয় সেই ব্যাটটি নিলামে তুলার ঘোষণা দেন সাকিব। বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের সৃষ্ট অচলাবস্থায় সমাজের সুবিধাবঞ্চিতদের জন্যই এ অর্থ ব্যয় করা হবে দুই সপ্তাহ আগে বলে জানান।

এর এক সপ্তাহ পর ২১ এপ্রিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাট নিলামে তোলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাংলাদেশের তারকা বাঁহাতি অলরাউন্ডার। নিজের অফিসিয়াল পেইজে ‘সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন’ নিয়ে একটি লাইভ আয়োজনে তিনি জানান, ২২ এপ্রিল-২০২০ বুধবার রাত ১০টায় শুরু হবে নিলাম। সাকিব এও জানান এটি আয়োজন করা হবে ‘অকশন ফর অ্যাকশন’ পেইজ থেকে।

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার খেতাব পাওয়া বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান

২০১৯ বিশ্বকাপে চোখ ধাঁধানো অলরাউন্ড নৈপুণ্য দেখান সাকিব। আট ম্যাচে ৩৬.২৭ গড়ে নেন ১১ উইকেট। ব্যাটিংয়ে ৬০৬ রান করেন অতিমানবীয় ৮৬.৫৭ গড়ে। সেঞ্চুরি ছিল দুটি, হাফসেঞ্চুরি পাঁচটি। কেবল একটি ম্যাচেই ফিফটি ছোঁয়ার আগে আউট হন তিনি।

যে ব্যাট দিয়ে এমন ঐতিহাসিক পারফরম্যান্স, সেটি নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়ে ২১ এপ্রিল-২০২০ সাকিব জানান, দেশের মানুষই তার কাছে বেশি প্রিয়। আসলে একটু কুসংস্কারও ছিল, এক ব্যাট দিয়েই খেলেছি টেপ পেঁচিয়ে পেঁচিয়ে। এটা আমার খুবই প্রিয় একটা ব্যাট… তবে দেশের মানুষগুলো নিঃসন্দেহে আমার কাছে এর থেকেও অনেক বেশি প্রিয়।

এই কারণে আমার এই ব্যাটটি এই পেইজে (অকশন ফর অ্যাকশন) নিলামে তুলছি, যেটা দিয়ে আমি প্রায় ১৫০০ রান তুলেছি এবং আপনাদের দোয়ায় এই ব্যাট দিয়েই পুরো বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো খেলেছি।

সাকিব বলেন, ‘এই ব্যাটটি আমার কাছে খুব স্পেশাল। এই ব্যাট দিয়ে শেষ এক বছরে প্রায় দেড় হাজারের উপরে রান করা, ব্যাটটা আমার কাছে অনেক প্রিয়। যেহেতু অনেকদিন ধরে খেলছি না, ব্যাটটা ব্যবহৃতও হচ্ছে না। ১০-১৫ দিন আগে থেকেই কথা হচ্ছিল, এটা কীভাবে কাজে লাগানো যায়।’

কালকে ( ২২ এপ্রিল-২০২০ বুধবার) রাত ১০টায় আমি এই পেইজ থেকে লাইভে আসব ও আশা করি, আপনাদের কেউ এই ব্যাটটি একটা ভালো মূল্য দিয়ে কিনে নিয়ে আমাদের সবাইকে সুবিধাবঞ্চিতদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দেবেন।’

ঘোষণা দেন মুশফিকুর রহিমও:

মহামারি করোনার মোকাবিলায় অর্থ সহায়তা করার জন্য ব্যাট নিলামে তোলার ঘোষণা দেন মুশফিকুর রহিম। ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার গলে যে ব্যাটটি দিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে লেখা হয়েছিল নতুন ইতিহাস, দেশ পেয়েছিল টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি, সেই ইতিহাস রাঙানো অমূল্য ব্যাটটি নিলামে তুলার ঘোষণা দেন মুশফিক।

এরপর নিষেধাজ্ঞায় থাকা বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান মানুষের পাশে এসে দাঁড়াতে মুশফিক-তামিমদের মতো ক্রিকেটারদের ব্যাট-জার্সি নিলামে তোলার আহ্বান জানান। আগেই বলা হয়েছে সাকিব নিজেও সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন চালু করে করোনা লড়াইয়ে সামিল হয়েছেন।

বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম

সাকিবের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম তার ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাট নিলামে তোলার ঘোষণা দেন। শ্রীলংকার বিপক্ষে গল টেস্টে ২০১৩ সালে ডাবল সেঞ্চুরি করা ওই ব্যাটের নিলাম থেকে পাওয়া অর্থ দেশের অসহায় লোকদের সহায়তার খরচ করার ঘোষণা দেন মুশফিকুর রহিম।

টুইটে মুশফিক জানান, ব্যাটটা আমার কাছে খুবই বিশেষ তবে মানুষের জীবনের চেয়ে কোন কিছুই গুরুত্বপূর্ণ নয় আমার কাছে।

থেকে থাকেননি মোহাম্মদ আশরাফুল:

সাকিব, মুশফিকের মতো ব্যাট নিলামে তুলার ঘোষণা দেন এক সময়ে দাপুটে ক্রিকেটার মোহাম্মদ আশরাফুল। ২০ এপ্রিল-২০২০ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আসলে আমাদের এখানে এসবের সংস্কৃতি নেই। আগে থেকেই চিন্তা ছিল বয়স হয়ে গেলে এসব অকশনে দিয়ে এর অর্থ কোনো চ্যারিটি সংগঠনে দেব। এখন পুরো পৃথিবী বড়ো সমস্যায় আছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সব দেশ। আমাদের দেশও আক্রান্ত। এই সময়ে অকশন করতে পারলে ভালোই হতো।’

আশরাফুল আরো বলেন, ‘মুশফিকও দেখলাম করছে। এগুলো কীভাবে করে জানি না। আমার কাছে দুটি মূল্যবান ব্যাট আছে। ২০০১ সালে সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরির ব্যাট ও কার্ডিফে সেঞ্চুরির ব্যাট। আরো অনেক কিছু আছে। তবে এ দুটি ব্যাটের প্রতিই সবার আগ্রহ বেশি থাকবে। ভালো অর্থ পাওয়া গেলে অসহায় মানুষদের সাহায্য হবে।’

উপযুক্ত মাধ্যম, প্রক্রিয়া নিশ্চিত হলে আশরাফুল অচিরেই নিলামে তুলতে চান নিজের ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা অর্জনের দুটি ব্যাট।

অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরির ইতিহাসগড়া ব্যাট নিলামে তোলার মুশফিকের ঘোষণার পর ব্যাট নিলামে তুলার ঘোষণা দেন বাংলাদেশের দুর্দান্ত ক্রিকেটার মোহাম্মদ আশরাফুল।

২০০১ সালে অভিষেক টেস্টে গোটা বিশ্বকে চমকে দেন মোহাম্মদ আশরাফুল

তার স্পেশাল দুটি ব্যাট নিলামে তুলার ঘোষণা দেন তিনি। ২০০১ সালে শ্রীলঙ্কায় সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে অভিষেকে টেস্ট সেঞ্চুরি ও ২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেঞ্চুরি উপহার দেয়া ব্যাট দুটি নিলামে তোলার ইচ্ছার কথা জানিয়ে আশরাফুল বলেন, প্রয়োজন হলে সেঞ্চুরি করা সব ব্যাটই নিলামে তুলবেন তিনি।

টেস্ট অভিষেকেই গোটা বিশ্বকে চমকে দিয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ২০০১ সালে মুরালি-ভাসদের মাড়িয়ে কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ১১৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। টেস্ট ক্রিকেটে সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ানের রেকর্ডটা এখনো আশরাফুলের দখলেই আছে।

ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়া তখনো অজেয় ছিল বাংলাদেশের কাছে। ২০০৫ সালে কার্ডিফে রিকি পন্টিংয়ের পরাক্রমশালী অস্ট্রেলিয়াকে মাটিতে নামিয়ে এনেছিল আশরাফুলের সেঞ্চুরি। তার ১০০ রানের ইনিংসে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আশরাফুলের ক্যারিয়ারের বড়ো স্মারক এ দুই সেঞ্চুরি ব্যাট। দুটি ব্যাটই সংরক্ষিত আছে তার কাছে। করোনা ভাইরাসের এই দুর্যোগে ব্যাট দুটি নিলামে বিক্রির অর্থ দিয়ে দুস্থদের সাহায্য করার ইচ্ছা তার।

অকশান ফর অ্যাকশন:

সাকিব আল হাসানের ব্যাটটি নিলাম হবে অকশান ফর অ্যাকশনের প্ল্যাটফর্ম অর্থাৎ তাদের ফেসবুক পেজ থেকে। এই সংগঠনের সঙ্গে থাকছে সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনও। নিলাম থেকে পাওয়া অর্থ সরাসরি চলে যাবে সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনে।

মানবহিতকর উদ্যোগ অকশান ফর অ্যাকশনের নেপথ্যে রয়েছেন ফটোসাংবাদিক, পরিচালক এবং উপস্থাপক প্রীত রেজা এবং সামাজিক মাধ্যম তারকা আরিফ আর হোসেন।

মানুষ বড় একলা, তুমি তাহার পাশে এসে দাঁড়াও—বস্তুত এই সমমর্মিতা থেকে এক রাতে অকশান পর অ্যাকশনের ভাবনাটা আসে প্রীত রেজার। বিষয়টা নিয়ে সেই রাতেই আলোচনা করেন আরিফের সঙ্গে।

এই উদ্যোগে আরো সামিল হয়ে কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করেন সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা চিশতী ইকবাল।

তারপর খুব দ্রুতই বিষয়টার বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। সাকিব তাঁর ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের ব্যাটটি এই প্ল্যাটফর্মে নিলামে তোলায় সম্মত হন। ফলে সাড়া জাগিয়েই হয় অকশান ফর অ্যাকশনের সূচনা।

প্রীত জানান এখানেই শেষ নয়। বরং তাঁদের এই তালিকায় আছেন আরও অনেকে। তবে কত দিন পর পর তাঁরা নিলাম করবেন সেটা প্রথম নিলামের পরই সিদ্ধান্ত নেবেন।

আছে অন্যরকম বিষয়:

কেবল সাকিব, মুশফিকের নয় পর্যায়ক্রমে নিলামে উঠবে এশিয়া কাপে ১১৭ বলে ১২১ রান করা লিটন দাসের সেই ব্যাটও। তবে অকশান ফর অ্যাকশনের তালিকাটা বেশ হৃদয়গ্রাহী। কেবল সামগ্রী নয় আছে অন্যরকম বিষয়।

সময় ভালো হলে বাকের ভাইয়ের সঙ্গে কোনো গলির মোড়ে চায়ের দোকানে আড্ডা, অনন্ত জলিলের সঙ্গে লংড্রাইভ, তাহসানের সঙ্গে পিয়ানো সেশন, মাইলসের সদস্যদের সঙ্গে ঘাড়ে হাত দিয়ে ছবি তোলা, মোশাররাফ করিমকে বাসায় দাওয়াত দিয়ে খাওয়ানো মতো চমৎকার কিছু বিষয়, যা উঠবে নিলামে। উঠবে জেমসের তোরাই বল কি চাস।

তবে আরও কিছু আছে ব্যাটের মতো। যেমন নির্মলেন্দু গুণের কবিতা, চিরকুটের সুমির নথ, ইমনের গিটার, পাভেলের ড্রামস কিট। তালিকা এতটা ছোট নয়; বরং আরও আছেন অনেক সেলিব্রিটি, যাঁরা তাঁদের সৃষ্টি কিংবা সঙ্গ নিলামে দিতে এগিয়ে এসেছেন।

দীর্ঘ তালিকায় আছেন আলী জাকের, পার্থ বড়ুয়া, সৌম্য সরকার, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তিশা, মোস্তাফা সরওয়ার ফারুকিসহ আরও অনেকে।

অকশান ফর অ্যাকশনের নিলামে একদিন কেবল কোনো একটা কিছু নিলাম হয়েই শেষ হয়ে যাচ্ছে না। বরং ফেসবুক লাইভে যারা উপস্থিত থাকবেন তাদের সবার কাছে থাকবে এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ।

তাদের এমন উৎসাহ পরবর্তীতে ইতিবাচক কাজ দেবে

যার যা সামর্থ্য তাই পাঠাতে পারবেন অকশন ফর অ্যাকশনের বিকাশ অ্যাকাউন্টে। আর সেই অর্থ যাবে বিভিন্ন সংগঠনে যারা এই সময়ে নানা ভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে।

উল্লেখ্য, এই নিলামে অংশ নেওয়ার জন্য কমেন্টের ঘরে গিয়ে লিখে জানানো যাবে আপনি কত দিতে চান। আর নাম প্রকাশ করতে না চাইলে ইনবক্স করতে পারেন। এদিন সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে সাকিবের ব্যাটের সর্বোচ্চ দাম উঠে সাড়ে আট লাখ টাকা।

জন্মদিনেই কেএল রাহুলের ঘোষণা:

এবার নিজের বিশ্বকাপে খেলা একটি ব্যাট, এক জোড়া গ্লাভস, প্যাড, একটি হেলমেট ও তিন ফরম্যাটে খেলা তিনটি জার্সি নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান কেএল রাহুল।

নিলাম থেকে পাওয়া অর্থ রাহুল সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের জন্য খরচ করার ঘোষণা দেন। আর তার ওই ক্রীড়া সামগ্রির নিলামে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন গত ১৮ এপ্রিল-২০২০ শনিবার তার জন্মদিনে।

ভারতের ক্রিকেট সমর্থকদের গ্রুপ ‘ভারত আর্মির’ পেজে একটি ভিডিও বার্তায় রাহুল এ ঘোষণা দিয়ে বলেন, ‘নিলামে অংশ নিন আমার ও সুবিধা বঞ্চিত ওই শিশুদের প্রতি আপনার ভালোবাসা প্রদর্শন করুণ। চলুন এই কঠিন সময়ে আমরা একসঙ্গে কাজ করি। যাতে সবাই আবার আরও শক্তিশালী হয়ে নতুন করে শুরু করতে পারি ।’

ভারতীয় ক্রিকেটার কেএল রাহুল

করোনা ভাইরাসের কারণে পুরো ভারত লকডাউন রয়েছে। লকডাউন থাকায় বন্ধ রয়েছে যাবতীয় পরিসেবা। ফলে জীবনধারণে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন ভারতের দরিদ্র মানুষরা। সেই মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে সরকার। সরকারের পাশে দাঁড়ালেন ভারতীয় এ ক্রিকেটার।

এক সমাজসেবী সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপে ব্যাবহার করা ও নিজের সই করা ব্যাট নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কেএল রাহুল। একই সঙ্গে রাহুলের টেস্ট, ওয়ান ডে, টি-টোয়েন্টি খেলা ভারতীয় দলের জার্সি, গ্লাভস, প্যাড এবং হেলমেটও নিলামে তোলা হবে। তা থেকে সংগৃহীত অর্থ দেশের দরিদ্র শিশুদের কল্যানে কাজে লাগানো হবে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটার।

জন্মদিনে এমন জনকল্যাণমূলক ঘোষণার জন্য ভারতীয় ক্রিকেটারের এই পদক্ষেপে মুগ্ধ হয়েছেন ক্রিকেট প্রেমীরা।

 

আরো দেখুন

Leave a Comment