করোনাভাইরাস মুক্ত চীনের মুসলিমরা

করোনাভাইরাস মুক্ত চীনের মুসলিমরা

করোনা ভাইরাস মহামারীর আকার ধারণ করেছে চীনে। চীনের উহান ও হুবেই শহরসহ আরো কয়েকটি শহর পুরোপুরি অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

চীন ছাড়াও ভারত, জাপান, ভিয়েতনাম, হংকং, সিঙ্গাপুর, ব্রিটেনসহ বিশ্বের প্রায় ২৪টি দেশ আক্রান্ত হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতিমধ্যে করোনাকে মহামারী আকারে ঘোষণা করেছে। চীনে করোনাভাইরাসের কারণে এ পর্যন্ত মারা গেছে ১০৩৩ জন।

তবে আশ্চর্যের খবর হলো, চীনের মুসলিরা করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত রয়েছে। অথচ তাদের যে পরিবেশে রাখা হয়েছে, তাতে করে তাদেরই এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা ছিল বেশি।

সম্প্রতি সিএনএন জানিয়েছে, করোনা ভাইরাস যতই মহামারি হোক, চীনের মুসলিমদের মাঝে তার কোন বিস্তার হয়নি। যার একমাত্র কারণ তাদের হালাল খাদ্যাভ্যাস।

মুসলিমদের খাদ্য তালিকায় হালাল ও হারাম বিভক্ত থাকায় তারা এসব খাবার ভক্ষণ করে না বিধায় বেশ নিরাপদেই রয়েছেন চীনা মুসলিমরা।

চীনের জিনঝিয়াং প্রদেশে বিভিন্ন বন্দি শিবিরে উইঘুর মুসলিমদের আটকে রাখার অভিযোগ রয়েছে।

চীনের মুসলিমরা হালাল খাবার পরিবেশন করছেন

ধারণা করা হচ্ছিল, তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বেশ দুর্বিসহ অবস্থায় পড়বে। তবে এমন কিছুই হয়নি।

এটি যেহেতু বাতাসের মাধ্যমে ছড়ায় তাই যেকোন সময় মুসলিমদের মাঝেও দেখা যেতে পারে।

গবেষকরা বলছেন চীনাদের উগ্র খাদ্যাভ্যাসের কারণে বন্য পশু থেকে ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। সাপ, শুকর, উল্লুক, ব্যাং, গাধা, তেলাপোকার ফ্রাই, ইঁদুর, টিকটিকি সজারুসহ নানা রকম কীটপতঙ্গ ও বাদুরের জুস।

এমন কোন পশুই পাওয়া যাবে না যা সেদেশের মানুষ ভক্ষণ করে না। চীনে ঘরে বসে অর্ডার করলেই পাওয়া যায় ১২০ প্রজাতির বন্য পশুর মাংস।

বৌদ্ধ সংখ্যা ঘরিষ্ঠ চীনে ২ কোটি ৩০ লাখ মুসলমানের বসবাস করেন। ধর্ম চর্চার ক্ষেত্রে নিং জিয়া প্রদেশের মুসলিমরা বেশ স্বাধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *