কবরের দাম যেখানে ৪ লাখ টাকা

কবর

জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে কমে যাচ্ছে জমি। তাই মৃত্যুর পর মানুষকে কবর দেওয়ার জমির দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। চাঁদপুর পৌর কবরস্থানের প্রতি কবরের মূল্য ৪ লাখ টাকায় ঠেকেছে। যেখানে ৮ বছর আগে প্রতিটি কবরের দাম ছিল মাত্র ৫০ হাজার টাকা।

চাঁদপুর শহরের বাসস্ট্যান্ডের কাছে অবস্থিত কবরস্থানটিতে সামান্য জায়গা খালি নেই। তাই পৌর কর্তৃপক্ষ পাশের বাসস্ট্যান্ড মসজিদের বড় একটি পুকুর ভরাট করেছে কবরের জায়গা সম্প্রসারণ করেছে। তবে সেটিও কবরে ভরে যাচ্ছে।

বর্তমানে ভরাটকৃত পুকুরে কিছু জায়গা খালি থাকলেও অনেকেই দুই থেকে তিন লাখ টাকায় অগ্রিম কবর ক্রয় করে দেয়াল করে রাখছে ফলে কবরের জায়গা আরও ছোট হয়ে যাচ্ছে।

বাধ্য হয়ে পৌর কর্তৃপক্ষ ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে প্রতি কবরের জায়গার দাম ৩ লাখ থেকে বাড়িয়ে ৪ লাখ টাকা করেছে। সবশেষ চাঁদপুর পৌর সভার বাজেটে দেখা যায়, কবর বেচে করে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে পৌর কর্তৃপক্ষের আয় হয় ২৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

চাঁদপুর পৌরসভার হিসাব রক্ষক শাখা ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে কবর থেকে ৫০ লাখ টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। এছাড়া পৌর প্রশাসন শাখা প্রতি কবর চার লাখ টাকা ঘোষণা দেওয়ার পর এরইমধ্যে ২০টি কবর বিক্রি হয়ে গেছে।

পৌর সভার অধিনে প্রায় ১০ হাজার কবর রয়েছে। একাধিক কবরের ওপর নতুন করে কবর দেয়া হয়েছে। পৌর মেয়র কোনো কবর বিক্রি করতে না চাইলেও মানুষজন তাদের স্মৃতি ধরে রাখতে কবর কিনে পাকা করে স্থায়ী করে রাখছেন। তাই বাধ্য হয়ে পৌর কর্তৃপক্ষ কবরের জমি বিক্রি করছে।

ভবিশ্যতে কেউ যেন কবর ক্রয় করতে আগ্রহী না হয় তাই পৌর কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তেই এসব কবরের দাম বাড়ানো হচ্ছে। একই সাথে নতুন আরেকটি কবরস্থানের প্রয়োজন অনুভব করতে পৌর কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় প্রশাসনের সাথে নতুন আরো একটি কবরস্থান করার বিষয় কথা চালাচ্ছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

আরো দেখুন

Leave a Comment